মাসায়েরমাহে রমজানহাদিসের বানী

চাঁদ দেখে বা নাদেখে রোজা রাখা ও রোজা ভাঙ্গার হুকুম।

সহীহ বুখারী (তাওহীদ) অধ্যায়ঃ ৩০/৫, হাদিস নং ১৯০০

চাঁদ দেখে বা নাদেখে রোজা রাখা ও রোজা ভাঙ্গার হুকুম প্রসঙ্গে।

আরবী মাস চাঁদ দেখার উপর নির্ভরশীল। আকাশ মেঘাচ্ছন্ন বা প্রাকৃতিক দূর্যেোগ মুহুর্তে চাঁদ দেখে বা নাদেখে রোজা রাখার হুকুম ও  রুজা বাঙ্গার হুকুম অথবা কি করনীয়?
সে বিষয় রাসূল (সাঃ) বলেনঃ
حَدَّثَنَا يَحْيَى بْنُ بُكَيْرٍ قَالَ حَدَّثَنِي اللَّيْثُ عَنْ عُقَيْلٍ عَنْ ابْنِ شِهَابٍ قَالَ أَخْبَرَنِي سَالِمُ بْنُ عَبْدِ اللهِ بْنِ عُمَرَ أَنَّ ابْنَ عُمَرَ قَالَ سَمِعْتُ رَسُولَ الله صلى الله عليه وسلم يَقُولُ إِذَا رَأَيْتُمُوهُ فَصُومُوا وَإِذَا رَأَيْتُمُوهُ فَأَفْطِرُوا فَإِنْ غُمَّ عَلَيْكُمْ فَاقْدُرُوا لَهُ وَقَالَ غَيْرُهُ عَنْ اللَّيْثِ حَدَّثَنِي عُقَيْلٌ وَيُونُسُ لِهِلاَلِ رَمَضَانَ
অর্থঃ ইবনু ‘উমার (রাঃ) হতে বর্ণিত। তিনি বলেন, আমি আল্লাহর রাসূল সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম -কে বলতে শুনেছি, যখন তোমরা তা (চাঁদ) দেখবে তখন সওম রাখবে, আবার যখন তা দেখবে তখন ইফ্তার করবে। আর যদি আকাশ মেঘলা থাকে তবে সময় হিসাব করে (ত্রিশ দিন) পূর্ণ করবে। ইয়াহইয়া ইবনু বুকায়র (রহ.) ব্যতীত অন্যরা লায়স (রহ.) হতে ‘উকায়ল এবং ইউনুস (রহ.) সূত্রে বর্ণনা করেন, নাবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম কথাটি বলেছেন রমাযানের চাঁদ সম্পর্কে। (১৯০৬, ১৯০৭) (আধুনিক প্রকাশনীঃ ১৭৬৫, ইসলামিক ফাউন্ডেশনঃ ১৭৭৬ )

=== অন্নান্য বিষয়ে আরও মাসয়ালা জানতে এখানে ক্লিক করুন। ===

মূল কথা হলো
রমজান মাসের চাঁদ দেখতে অসুবিধা হলে তার পূর্বের সাবান মাস ৩০দিন গননা করে রমজান মাসের রোজা রাখতে হবে। এবং শাওয়ার মাসের চাঁদ দেখতে অসুবিধা হলে রমজান মাস ৩০ দিন পূর্ণ  করতে হবে। এটাই হাদিসের মূল কথা।

মুফতিহ মুহাঃ মুহিব্বুল্লাহ আল মুঈন
কামিল ফিকহ্, ঝালোকাঠী এন এস কামিল মাদ্রাসা

ইসলামিক গল্প পড়তে এখানে ক্লিক করুন।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Close